SIDDHESWAR HATUI

সিদ্ধেশ্বর হাটুই (1)

কোজাগরী লক্ষী মাতা

সিদ্ধেশ্বর হাটুই,

মাগো তুমি কেমন মা ? বলো কাদের পানে আছো চেয়ে
কত মানুষ তোমাকে ছাড়া মা, রয়েছে লক্ষীছাড়া হয়ে।
তোমার -কাদের পূজোতে মন ভরে মা ? কাদের কর আপন
দিন রাত যারা খেটে মরে মা , রাত্রে দেখে অন্ন চিন্তার দুঃস্বপন।
তাদের কি আর দোষ বলো মা, পারেনা করতে পূজোর আয়োজন
মনে মনে তোমার পূজো করে মা, তারা করে দুঃখের দিন যাপন।

মাগো জানি তুমি -সবার মাতা, তুমিই সবার বস্ত্র-অন্নদাতা
তবে কেন এ বিচিত্রতা, বলো -মা বলো ? আমার লক্ষী মাতা ।
যাদের আছে টাকা –কড়ি, দেয় মা তোমায় মিষ্টি –মুড়ি
থালায় ভরে দেয় ফুল –মালা, আর দেয় মা সোনার চুড়ি।
তোমার পায়ের চিহ্ন মাগো সেথায় কেন সদাই পড়ে ?
দীন-দুঃখি ঐ মানুষের ঘরেও মা- যেন তোমার আশিস ঝরে।

আনন্দভরা হৃদয় নিয়ে, সকলেই মায়ের পূজো করে
তবু দেখো মা কত শিশু, পেটের জ্বালায় দুটো অন্ন খুঁজে মরে।
করো মা তুমি সঠিক বিচার, না থাকে যেন আর হাহাকার,
সাম্যতা তুমি দাও মা এনে, অসহায় যারা -তাদের বাঁচাও এবার।
দেখবে -সকলেই করবে তোমার পূজো, আড়ম্বরের সহিত
নাড়ু-মিষ্টি-ফুল-মালা দিয়ে পূজো করে মা করবে তোমায় মহিত।

আর কত দিন

সিদ্ধেশ্বর হাটুই

কবে -কবে -কবে, আর কত দিন
থামবে কান্না, চোখ হবে অশ্রুহীন।
কবে হবে সেই সুখের প্রভাত, এই জীবনের শেষে
কবে দেখবো এই সমাজ নদী সমুদ্রে যাবে মিশে।
যারা আজ সমাজের বুকে ঢালছে দেখো গরল
দিনে-দুপুরে তাদের মন দেখবে কত সরল !
ঐ মানুষ গুলো , হ্যাঁ ঐ মানুষ গুলোর মূল্য সকলে দেয়,
এদের ছোবলে মরবে একদিন, চন্দ্রবোড়ার চেয়ে এদের বেশি ভয়।
মানুষ পারবেনা ? পারেনা তাদের বিষ দাঁত ভেঙে দিতে,
আসলে ভয়েতে আসে পিছিয়ে, চায়না নিজের কাঁধে কেউ দোষ নিতে।
সকলেই যদি থাকে –অন্যের দিকে চেয়ে, তাহলে সামনে থাকবে কে?
থাকবে আনেক মানুষ- হ্যাঁ , যারা পারে পরের হিতে রক্ত দিতে।
সকলেই যদি সমান হতো , হতোনা সমাজের পরিবর্তন কনোদিন,
এখনো আছে মানুষ , বহু মানুষ , যারা সমাধান করবেই একদিন।

চাষি

সিদ্ধেশ্বর হাটুই

দিন আসে দিন যায়, চলে যায়…..
স্বপ্নেরা পাখনা মেলে- কতনা আশায়।
আশায় আশায় মরে চাষা ভাই
সেকথা আর কারোর জানা নাই।
কেউ ভাবে না কারোর কথা…
লাগেনা তো কারো প্রাণে ব্যথা।
দিন যে তাদের কাটে মাঠে ঠাঠে
ফিরে আসে যখন, সূর্য মামা নামে পাটে।
স্বজনদের মুখে দেখতে হাসি
জীবনভর খেটে মরেই চাষি।
ফসল ফলিয়েও তারা পায়না সঠিক মূল্য,
মহাজন আর দালাল দের নিকট চাষিও পণ্য তুল্য।
যাদের হাতে কাস্তে, কোদাল, আর লাঙল বোটা
তাদের উপর ভর করে চলে এই সারা দেশটা।
চাষির কথা না ভাবলে ভাই …আসছে ভবিষ্যত…..
টাকা থাকলেও অনাহারে মরবে, বলুন আপনার অভিমত ?

কান্না

সিদ্ধেশ্বর হাটুই

মিথ্যের আড়ালে আজ সত্য কাঁদে
দুঃখের আড়ালে সুখ,
অসততায় ভরেছে দুনিয়া
সতজনের ফাটে বুক।
মানুষের আড়ালে কত অমানুষ
আদর্শ গেছে ভুলে
নিরাশার আড়ালে কাঁদছে আশা
ছেদ পড়ে যায় অকালে।

কামিন

সিদ্ধেশ্বর হাটুই

ও মিঠুনের মা- কেন আমায় কেউ
কাজে ডাকেনা আজ।
যখন ছিল যৌবন আমার
করেছি মাঠে ঘাটে কত হাজার কাজ,
এখন আমি হয়েছি বৃদ্ধা
করতে পারিনা ভালো কর্ম
বাবুরা আজ ডাকবে নাতো
এটাই ওদের ধর্ম।
আমার বলতে আর কেউ নেই
আমি স্বামী-সন্তান হীনা
একলা ঘরে খাবার জোটেনা
লোকেদের সাহায্য বিনা।
অসুখ করলে কেউ দেখবেনা
আমি এতোটাই অভাগিনী
আমার না আছে অর্থ না আছে জমিন
আমরা যে জাতে কামিন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *