সেই সব মুখগুলি // বিশ্বনাথ পাল

সেই সব মুখগুলি // বিশ্বনাথ পাল

সেই সব মুখগুলি স্মৃতির ক্যানভাসে

আজ অ বেলায়  কেন ভেসে আসে

সকলের সাথে সুসম্পর্ক ছিল, ছিল প্রীতি বাঁধন

এমন তো নয় – – তবুও কেমন

সেই স-ব মুখ

.

আজন্ম অনটন নিয়ে চেয়েছিল সুখ।

স্বল্প সন্তুষ্ট থাকা সেই সব জীবন

জানত না মোবাইলে বাজে রিং টোন

যোজন-যোজন পথ হাঁটাত  শহর যেতে

ক্লান্তি ছিল না, চটির ফিতে,

.

বিজলী বাতি কিংবা ইলেকট্রিক ফ্যান

‘আমাদের জন্যে নয়’-এই ছিল ধ্যান।

.

ফাঁকি দিলে ফাঁকে পরে–এই ছিল সার

স্বল্পমজুরী নিয়েও সরাত পাহাড়।

.

সত্য ও ন্যায় এর বুলি

শেখায়নি বিদ্যালয়গুলি

.

তবুও স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তাঘাট তৈরী হত,

অবলীলায় সাফ  বেওয়ারিশ কুকুরের লাশ

.

ছোট বড় কত রাস্তা বানিয়ে ছিল চাকলায়

অনিয়মিত মোড়াম পড়ে সরকারী টাকায়।

.

একশো দিনের কাজে চূড়ান্ত ফাঁকি দেওয়া যায়

এসব জানতো না তারা পাহাড় টলানো নেশায়

.

নদী বাঁধ ক্যানেল খোঁড়া, সাবাড় পগাড়

নদীস্রোতে ভাঙা সেতু বানাত আবার

.

ভোজ কাজে এসে নিজে নিত যে খবর

স্নেহ শীল পড়শীর মমতায় খুঁড়ত কবর।

.

বাঁশের সেই সেতু কবে হয়েছে ইতিহাস

কংক্রিটের সেতু আজ হয়েছেপ্রকাশ

.

সভ্যতার অগ্রদূত নিষ্প্রাণ সেতু

করতে পারে নি প্রমাণ – – সেই মুখগুলি ভীতু।

.

সেই সব মুখগুলি তাই বারবার

ফিরে ফিরে ঘিরে ধরে স্মৃতিকে আমার।।

.

.

.

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *