রাষ্ট্র, আমাকে মেরে ফেলো

মোঃ ইয়াসির ইরফান

রাষ্ট্র!
মেরে ফেলো আমাকে।
পুঁতে ফেলো একদম।
আমার বংশ-নির্বংশ করে,
চিরতরে বিলীন করে দাও আমাকে পৃথিবী হতে।
কোনো হাস্যকর অভিযান প্রয়োজন নেই,
দরকার নেই সস্তা চিত্রনাট্যের নাটুকে কল্পকাহিনী,
আয়োজনের আসর সাজিয়ে বহর ভারী করা লাগবে না
এই যে আমিই বলছি—
মেরে ফেলো আমাকে,
এটুকই তো যথেষ্ট।

এই রাষ্ট্র-ভরা পাপ,
এই সমাজ-ভরা দম্ভ, মিথ্যে, অবিচার আর ক্ষমতার অপব্যবহার।
দুর্বলের উপর সবলের চোটপাট,
তোষামোদে বেরিয়ে পড়া নষ্ট জিহ্বা,
চাটুকারদের আস্ফালন,
ক্ষমতার তেরপল টাঙিয়ে ভাঙিয়ে খাওয়ার অসুস্থ ও বিকৃত প্রতিযোগিতা,
নষ্টের বীভৎস অট্টহাসি,
লাম্পট্যের পৈশাচিক কামোচ্ছ্বাস,
অনাচার আর অসভ্যতা,
কদর্য আর অশ্লীলতা,
এইসব দেখে চুপ থাকা আমার পক্ষে সম্ভব নয়।
আমি আমার মস্তিষ্ক দিয়ে শুদ্ধ চিন্তার সক্ষমতা রাখি এখনো
আমার বিবেক বিকিয়ে দিইনি নষ্টের পদতলে,
আমার মেরুদন্ড আজ-তক আপোষহীন,
আমার কপাল এখনো কেবলমাত্র আল্লাহর জন্য সিজদা করে।
অতএব, সন্ধি সম্ভব নয়।
চিরবৈরীতা বিদ্যমান দুই পক্ষে
সুতরাং, মেরে ফেলো আমাকে।

একদল ক্লীব-ভীতু-কাপুরুষ দু’পেয়ে কিলবিল করে এই জনপদে
নির্ঝঞ্ঝাট যাপনের আশায় তারা এক জিন্দেগীর সমস্ত সয়ে যায় অকপট।
চুপচাপ মেনে নেয় দুঃশাসনের অভিশাপ
ভয়ের কারাগারে নিশ্চিন্তে সমর্পণ করে নিজেকে
নৈঃশব্দের গুহায় আশ্রয় চায়,
বোবার শত্রু নেই—
তাই এক-জীবন বাক-হীন হলে তাদের ক্ষতি নেই!

কাপুরষবেষ্টিত সমাজে পৌরুষের অহঙ্কার গায়ে নিয়ে
এই আমি বেঁচে আছি।
আমি সাহসহীন নই,
ক্লীবত্বের অভিশাপ হতে মুক্ত,
কাপুরুষোচিত জীবনের আনন্দে নয়,
বীরত্বের বন্দীত্ব-ই আমার মুক্তি।
আমার সত্য-বাক তোমার জন্য হুমকি-মতন
আমার নীতি-কথা তোমার ভালো লাগবে না,
আমার কালজয়ী স্লোগানে তুমি তোমার পতন দেখবে
আমার প্রতিবাদে কেঁপে উঠবে তোমার সিংহাসন।
তাই, মেরে ফেলো আমাকে।

আমার পক্ষে তোমাকে ধ্বংস সম্ভব নয়,
নচেৎ প্রবল প্রলয়ে কেঁপে উঠত এই জনপদ
আগাগোড়া ধুমড়ে-মুচড়ে নতুন এক জনপদের গোড়াপত্তন হতো,
এই নিরীহ আমাকে দেখতে
সত্য-প্রতিষ্ঠায় কতটা নির্দয় ও নিষ্ঠুর।
একা একজন একটি রাষ্ট্রের অভিমুখে দাঁড়াতে পারে না
তবুও হাল ছাড়িনি,
তবে জানি সম্ভব নয়।
সততার সৎ সাহস আর ইনসাফ প্রতিষ্ঠার
বলিষ্ঠ উচ্চারণ ব্যতীত
আমার আর কোনো শক্তি নেই।

রাষ্ট্র!
আমার পক্ষে তোমাকে বিনাশ সম্ভব নয়,
বরঞ্চ তুমিই আমাকে শেষ করে দাও।
নয়তো একদিন দেখবে তুমি—
এই ধিকিধিকি করা জ্বলা আগুন দাবানল হয়ে
সমস্ত পুড়িয়ে ছারখার করে দেবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *